কবিতার পাতা

শেষ কথা

শেষ কথা জীবনের প্রবহমান ঘোলা রঙের হ-য-ব-র-লর মধ্যে হঠাৎ যেখানে গল্পটা আপন রূপ ধরে সদ্য দেখা দেয়, তার অনেক পূর্ব থেকেই নায়কনায়িকারা আপন পরিচয়ের সূত্র গেঁথে আসে। পিছন থেকে সেই প্রাক্‌গাল্পিক ইতিহাসের ধারা অনুসরণ করতেই হয়। তাই কিছু সময় নেব, আমি যে কে সেই কথাটাকে পরিষ্কার করবার জন্যে। কিন্তু নামধান ভাঁড়াতে হবে। নইলে জানাশোনা মহলের […]

কবিতার পাতা

মায়াজাল

কবিতার অন্তরালে আজও কিছু অদ্ভুত ও অস্পষ্ট স্মৃতি লুকায়িত রয়েছে । তাকে যতই বাহিরে টেনে এনে গদ্য লেখার চেষ্টা করি , ততক্ষণে সে টিকটাক পদ্দ্যের রুপ নিয়ে বসে যায়।

কবিতা আবৃতি

বৃক্কের সংলাপ

মাঝে মাঝে বৃক্কের সাথে কথা হয় ঝরা পাতার মতো বলে যায় তার কষ্টের সংলাপ । বলেছিল স্যার জগদীশ বসু বৃক্কের বেদনার কথা যুগ যুগ ধরে যে দোয়েল বেঁধেছে বাসা,শিশ দিয়ে গেছে ডালের ফাঁকে দোহাই তার সভ্যতার সঙ্গীত – সবটুকু ছাই কর না বেদনায় যদি অঙ্কুরোদগমন হয় নতুন বৃক্কের

কবিতার পাতা

আন্ধকারে হাত ১

ঘুমন্ত শহর দেশলাইয়ের আলোয় পরিণত হচ্ছে নাগরিক ভোজে আজ নিরক্ষর জ্ঞান অন্ধকারে বৃদ্ধি পেয়েছে অক্ষম জনসভার তুমুল ঝরে পাখিরা স্পন্ধনহিন দেহে পরে রয়। ভোরের গান দুপুরের প্ররোচনায় উড়াল দিল দিল না ফেরার দেশে।

কবিতার পাতা

বোতামহীন পোশাক

প্রতিনিয়তই আমি আমাকে হারাচ্ছি নিজের অজান্তে আপাত সুখী এই সুখ কাতর রোদ আমাকে তোলপাড় করে চলেছে। আমার না বলা কথাগুলো রাত্রির বিসন্নতায় অশূন্য আকাশের মোমঘরে আশ্রয় নেয় । উর্বর রমণীর আসমাপ্ত সঙ্গমে ডুবে যাচ্ছে নিশ্ছিদ্র রাত। আর আমি দিন কাটাই কবিতার বোতামহীন পোশাকের মতোই ।

কবিতার পাতা

প্রজাপতি আঁকা সকাল

গভীর ঘুমে অচেতন পৃথিবী জানালা খুলে দেখি ফুলের বাগানে ভাসছে রঙ্গিন প্রজাপতি প্রজাপতিরা শিরায় শিরায় বুনে গেছে পৃথিবীর সব সুক আর ভোরের মিহি গন্ধ এভাবেই শুরু হল নতুন দিন , প্রজাপতি আঁকা সকাল ।

কবিতার পাতা

রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহকে লেখা চিঠি – তসলিমা নাসরিন

প্রিয় রুদ্র, প্রযত্নেঃ আকাশ, তুমি আকাশের ঠিকানায় চিঠি লিখতে বলেছিলে। তুমি কি এখন আকাশ জুরে থাকো? তুমি আকাশে উড়ে বেড়াও? তুলোর মতো, পাখির মতো? তুমি এই জগত্সংসার ছেড়ে আকাশে চলে গেছো। তুমি আসলে বেঁচেই গেছো রুদ্র। আচ্ছা, তোমার কি পাখি হয়ে উড়ে ফিরে আসতে ইচ্ছে করে না? তোমার সেই ইন্দিরা রোডের বাড়িতে, আবার সেই নীলক্ষেত, […]

চিঠি

প্রধান শিক্ষকের কাছে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিঙ্কনের চিঠি

মাননীয় মহাশয়, আমার পুত্রকে জ্ঞানার্জনের জন্য আপনার কাছে প্রেরণ করলাম. তাকে আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলবেন – এটাই আপনার কাছে আমার বিশেষ দাবি. আমার পুত্রকে অবশ্যই শেখাবেন – সব মানুষই ন্যায়পরায়ণ নয়, সব মানুষই সত্যনিষ্ঠ নয়. তাকে এও শেখাবেন, প্রত্যেক বদমায়েশের মাঝেও একজন বীর থাকতে পারে, প্রত্যেক স্বার্থপর রাজনীতিকের মাঝেও একজন নি:স্বার্থ নেতা থাকে. তাকে […]